কোভিদ-১৯ সংক্রান্ত নতুন নিয়ম ও সীমাবদ্ধতা : ৪মে থেকে ১৮মে ২০২০

২৬ এপ্রিল ২০২০ তারিখে প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ঘোষিত নতুন ডিক্রি অনুযায়ী ৪মে থেকে ১৮মে পর্যন্ত করোনাভাইরাস সংক্রান্ত জরুরি অবস্থার কারণে গৃহীত পরিবর্তিত নিয়মাবলী ও আচরণবিধি কার্যকর হবে।


এখনো কি দূরত্ব বজায় রেখে চলতে হবে ?

এক ব্যক্তি হতে অন্য ব্যক্তিকে বাধ্যতামূলকভাবে অন্তত এক মিটার দূরত্বে অবস্থান করতে হবে, একই সাথে মাস্ক ও হাতমোজাসহ অন্যান্য ব্যক্তিগত প্রতিরক্ষাসামগ্রী ব্যবহারের পরামর্শ আগের মতই বহাল থাকবে। জনসাধারণের জন্য প্রবেশযোগ্য বদ্ধ স্থানে মাস্ক অবশ্যই পড়তে হবে, এর মধ্যে গণপরিবহনও অন্তর্ভুক্ত।


সব ধরণের স্থানান্তর কি অনুমোদিত?

কাজের জন্য, স্বাস্থ্যগত কারণ, অপরিহার্য প্রয়োজনীয়তার ক্ষেত্রেই কেবল একই এলাকার মধ্যে চলাফেরা করা যাবে, এ ব্যতীতও সমাবেশ সৃষ্টি না করে ও ব্যক্তিগতভাবে অন্তত এক মিটার দূরত্ব বজায় রেখে এবং মাস্ক ব্যবহারপূর্বক আত্বীয়স্বজনের সাথে দেখা করার নতুন নিয়ম সংযোজন করা হয়েছে। কেবল কাজের জন্য, স্বাস্থ্যগত কারণ, অপরিহার্য প্রয়োজনীয়তার ক্ষেত্রেই ভিন্ন এলাকার মধ্যে স্থানান্তরিত হওয়া যাবে। অপরদিকে নিজ আবাসস্থলে(দোমিচিলিও/রেসিডেন্স) প্রবেশের নিমিত্তেও স্থানান্তর অনুমোদিত।

তদুপরি কোভিদ-১৯ সম্পর্কিত জরুরি অবস্থার সর্বশেষ তথ্যের জন্য সংশ্লিষ্ট এলাকার জন্য নির্ধারিত ফোন নম্বরে যোগাযোগের পরামর্শ দেয়া যাচ্ছে।


নতুন স্বীয়প্রত্যয়নপত্রের ফর্ম কোনটি?

ইতালিতে প্রবেশের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের

নির্দিষ্ট স্বীয়প্রত্যয়নপত্রের ফর্মটিই স্থানান্তরের স্বীয়প্রত্যয়নপত্রের ফর্ম হিসেবে বিবেচ্য হবে।

 

আমি কি পার্কে যেতে পারি?

একে অপরেরে কাছ থেকে অন্তত এক মিটার দূরত্ব বজায় রেখে বাচ্চাদের খেলার স্থান বদ্ধ রাখার নিশ্চয়তা প্রদানপূর্বক পাব্লিক পার্ক, বাগান ও ভিলাতে যাওয়ার অনুমতি প্রদান করা হয়েছে। তবে যদি পার্কের মধ্যে সুরক্ষা সংক্রান্ত নিরাপত্তা নিশ্চিত করা না যায় তাহলে মেয়র পার্কে প্রবেশের ক্ষেত্রে আবার নিষেধাজ্ঞা প্রয়োগ করতে পারেন।


ক্রীড়া ও শরীরচর্চা কার্যক্রম চালিয়ে যেতে পারি?

এককভাবে করার অনুমোদন রয়েছে, তবে নাবালকের সঙ্গী হিসেবে, বা সম্পূর্ণরূপে অ-স্বাবলম্বী কোন ব্যক্তির সাহায্যকারী হিসেবে আন্তঃব্যক্তিক নিরাপদ দূরত্বে অবস্থান করে ক্রীড়া ও শরীরচর্চা কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবে।

ধর্মীয় উৎসব/রীতিনীতি ও অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া পালন করা যাবে?

ধর্মীয় উৎসব/রীতিনীতি উদযাপনের ক্ষেত্রে কেবল অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া পালনের অনুমতি দেয়া হয়েছে, যেখানে পরিবারের নিকটবর্তী সর্বোচ্চ ১৫ জন সদস্য উপস্থিত থাকতে পারবে এবং সম্ভব হলে উন্মুক্ত স্থানে সম্পাদনের পরামর্শ দেয়া যাচ্ছে (অবশ্যই মাস্ক পড়া ও নিরাপদ দূরত্ব অবলম্বন বাধ্যতামূলক)।


ফাস্ট ফুড বা রেস্টুরেন্টে যেতে পারি?

হ্যা, কেবল পূর্বে অর্ডারকৃত দ্রব্য সংগ্রহের জন্য যাওয়া যাবে। বাসায় খাবার সরবরাহ করার জন্য বা পূর্বে অর্ডারকৃত খাবার সংগ্রহের কার্যাবলী সম্পাদনের জন্যই কেবল রেস্টুরেন্ট খোলা রাখা যাবে। কিন্তু রেস্টুরেন্টের ভিতরে বসে কোন খাদ্যদ্রব্য খাওয়া যাবেনা। 


আমার জ্বর হলে কি করতে হবে?

জ্বর ৩৭.৫ ডিগ্রি হলে ও শ্বাসতন্ত্রের সমস্যাজনিত কোন লক্ষণ দেখা দিলে কেবল বাসাতে থাকার নির্দেশই দেয়া হচ্ছেনা একইসাথে নিজের ব্যক্তিগত ডাক্তারের সাথে অতিসত্ত্বর যোগাযোগ করার নির্দেশ প্রদান করা যাচ্ছে।


মোবাইলে মেসেজের মাধ্যমে বা ই-মেইলের দ্বারা কি আমি আমার ব্যক্তিগত ডাক্তারের কাছ থেকে প্রেসক্রিপশান পেতে পারি?

১৯মার্চ ২০২০ এর অধ্যাদেশ অনুযায়ী কাগজের প্রেসক্রিপশন নেয়ার জন্য স্বশরীরে উপস্থিত না হয়ে ব্যক্তিগত ডাক্তারের কাছ থেকে ইলেক্ট্রনিক্স প্রেসক্রিপশানের নম্বরটি মেসেজ বা ই-মেইলের মাধ্যমে নেওয়া যাবে। ফার্মাসিস্ট একবার রোগীর ইলেক্ট্রনিক্স প্রেসক্রিপশানের নম্বরটি ও স্যানিটারি কার্ডে উল্লিখিত কোদিসে ফিস্কালের নম্বরটি সংগ্রহ করামাত্র ওষুধ সরবরাহ করতে পারেন।

জাতীয় সীমাবদ্ধ ব্যবস্থায় নারী-নির্যাতন বিরোধী কেন্দ্রগুলির কার্যক্রম কি বন্ধ থাকবে?

না। স্টকিং ও নির্যাতনের স্বীকার নারীদের একাকীবোধ করার কোন কারণ নেই ও তারা যেকোন সাহায্য ও সহযোগিতার জন্য ফ্রি ফোন নম্বর ১৫২২ (২৪ঘণ্টা সক্রিয়) এ যোগাযোগ করতে পারবে। অপরদিকে ১১ মার্চের ডিক্রি অনুসারে নির্যাতনের ঘটনা “অপরিহার্য প্রয়োজনীয়তা’র” পরিস্থিতির অন্তর্ভুক্ত, যা নির্যাতিত নারীদের নির্যাতন বিরোধী কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য অনুমতি প্রদান করে।

বিশ্বমহামারীর কারণে কোন ব্যক্তি মানসিক চাপের(স্ট্রেস) সম্মুখীন হলে তার জন্য মনস্ত্বাত্তিক সমর্থনের কোন উদ্যোগ কি গৃহীত হয়েছে?

মনস্ত্বাত্তিক সমর্থনের জন্য ২৭ এপ্রিল হতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও সুরক্ষা বিভাগ কর্তৃক টোল ফ্রি ৮০০.৮৩৩.৮৩৩ এই নম্বরটি সক্রিয় করা হয়েছে। বিদেশ থেকে ০২.২০২২৮৭৩৩ এই নম্বরটিতে ৮টা হতে ২৪টা পর্যন্ত যোগাযোগ করা যাবে। বধিরদের সাথে যোগাযোগের ব্যবস্থাও রয়েছে।

আরো ভালোভাবে জানার জন্য নতুন করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের Numero verde di supporto psicologico এই ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে পারেন।

You may also like...

বাংলা
Italiano English (UK) Français አማርኛ العربية 简体中文 Español ਪੰਜਾਬੀ Русский Af Soomaali Shqip ትግርኛ اردو Wolof বাংলা